11.1 C
New York
বুধবার, ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০২৪
spot_img

রাবি’র দুই শিক্ষার্থীকে তুলে নিয়ে গেলো পুলিশ

রাবি প্রতিনিধিঃ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয় দিয়ে মেস থেকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) দুই শিক্ষার্থীকে তুলে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। রবিবার (১৩ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ৭ টার দিকে মহানগরীর চন্দ্রিমা থানার চকপাড়া এলাকার মেস থেকে তাদের তুলে নিয়ে যাওয়া হয়।

শিক্ষার্থীরা হলেন, মো. রেজোয়ান ইসলাম ও সাকিব। তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রিন্টমেকিং বিভাগের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র।

এ ঘটনায় চন্দ্রিমা থানায় ছোট ভাইয়ের নিখোঁজ সংক্রান্ত বিষয়ে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করার চেষ্টা করলেও সেটি গ্রহণ করেনি পুলিশ। সোমবার (১৫ নভেম্বর) রেজওয়ানের বড় ভাই মিরাজুল ইসলাম গণমাধ্যম কর্মীদের নিকট এ তথ্য প্রকাশ করেন।

মিরাজুল ইসলাম জানান, ‘আমি গত শনিবার রাজশাহী আসছি এবং তাদের মেসে ছিলাম। রবিবার সকাল বেলা মেসে ৪-৫ জন ব্যাক্তি সিভিল ড্রেসে এসে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয়ে রেজওয়ান এবং সাকিবকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। প্রথমে তথ্য-প্রযুক্তি ও পরে স্থানীয় এক দোকানির ব্যাপারে তারা জিজ্ঞাসা করেন। পরবর্তীতে তাদের মারধর করে তুলে নিয়ে যান। আমি তাদের পরিচয়পত্র দেখাতে বললে তারা পরিচয়পত্র দেখাননি। তারা আমার নাম্বার নিয়ে বলে পরবর্তীতে প্রয়োজন হলে আপনার সঙ্গে যোগাযোগ করবো।’

এ বিষয়ে চন্দ্রিমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. এমরান হোসেন বলেন, তারা আইনশৃংখলা বাহিনীর একটি দলের হেফাজতে আছে। এ ঘটনার বিষয়ে রাজশাহী মেট্রোপলিট্রন পুলিশের (আরএমপি) মুখপাত্র মো. রফিকুল আলম বিস্তারিত বলতে পারবেন।’

এ বিষয়ে আরএমপি’র মুখপাত্র ও অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, তাদেরকে সিটিএসবি’র কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট তুলে নিয়ে গিয়েছিলো। পরে তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে সোপর্দ করা হয়েছে।

সার্বিক বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক আসাবুল হক বলেন, ‘যেহেতু ওই দুই শিক্ষার্থীকে ক্যাম্পাসের ভেতর থেকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়নি তাই আমাদেরকে অবগত করা হয়নি। আর তারা কোনো অপরাধের সাথে সংশ্লিষ্ট কি না সে বিষয়টিও আমরা জানি না। তাই আমরা তাদের বিষয়ে খোঁজ খবর নিচ্ছি। সবকিছু জেনে আমরা ব্যবস্থা গ্রহণ করব।’

spot_imgspot_img
রাজশাহী বিভাগ

সর্বশেষ খবর

- Advertisment -spot_img

সর্বাধিক জনপ্রিয়

error: Content is protected !!

Discover more from News Rajshahi 24

Subscribe now to keep reading and get access to the full archive.

Continue reading