22.3 C
New York
মঙ্গলবার, মে ২১, ২০২৪
spot_imgspot_imgspot_imgspot_img

হযরত খায়রুল্লাহ শাহ(মাস্টার বাবা)(কঃ)’র মোন্তাজেম নজরুল ইসলাম চৌধুরী’র ওফাত

বিশেষ প্রতিনিধিঃ

হযরত খাইরুল্লাহ শাহ (মাস্টার বাবা) মহান আধ্যাত্বিক সম্রাট,শাহসুফী,মাইজভান্ডারের খলিফা,হযরত খাইরুল্লাহ শাহ,প্রকাশ মাস্টার বাবা (কঃ)’র দরবার শরীফ’র মোন্তাজেম শাহাজাদা নজরুল ইসলাম চৌধুরী’র ওফাত হয়। দীর্ঘ ২যুগ ধরে তিঁনি দরবার শরীফ’র মোন্তাজেম এর দায়িত্বে ছিলেন।

আজ ববিবার ১৫জানুয়ারী সকাল সারে ৫টায় স্ট্রোকে
ইন্তেকাল করেন।(ইন্না-লিল্লাহি ওয়াইন্না ইলায়হি রাজিয়ূন।)
বায়েজীদ বায়েজিদ বোস্তামী (রঃ) এর দরবারের পশ্চিমের পাহাড়, বায়েজিদ বোস্তামী,চট্টগ্রাম।

শিক্ষাগত যোগ্যতা চৌকস মেধা থাকা সত্ত্বেও দুনিয়া বিমুখ হয়ে সাধারন মানুষের মতো জীবন যাপন করতেন তিনি।মৃত্যুর আগ পর্যন্ত দরবার নিয়েই সর্বদাই ছিল তার ধ্যান-জ্ঞান,চিন্তা চেতনা।কিন্তু পারিপার্শ্বিক অবস্থায় নানা কারণে ছিলেন নানাভাবে চিন্তিত জর্জরিত।

দরবার প্রাঙ্গনে স্বাভাবিক অবস্থানকালে চলাচলে সুস্থ অবস্থায়। প্রাকৃতিক প্রয়োজনের টানে ঘটনাক্রমে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে হার্টস্ট্রোক হয়।অবস্থার অবনতি হলে তৎক্ষনাৎ চমেক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় এবং সেখানেই মৃত্যু হয়।
তিঁনি ছিলেন একমাত্র প্রয়াত দরবার শরীফ’র মোন্তাজেম, সজ্জাদানশীন মুনীর চৌধুরীর বড় পুত্র।ছোট পুত্র কায়সার আহমেদ চৌধুরী। তাঁর পিতার ওফাতের পর থেকে পিতার স্থলে দরবারে মোন্তাজেম পদে আসীন হয়ে সমস্ত দায় দায়িত্ব পালন করতেন।তিঁনি দীর্ঘ ২০০০সালের পর থেকে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত মনতাজমের দায়িত্বে ছিলেন। তার মৃত্যুকালে তাঁর ৬১ বছর বয়সে স্ত্রী,২ছেলে ও এক মেয়ে ও একাধিক বোন রেখে যান।

উক্ত দরবারের আজ বাদআসর মরহুমের যানাজার নামাজ দরবার প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত হবে। এবং দরবারের পাশেই দাফন করা হবে। বহুদিন ধরে দরবারের খেদমতে শাহাজাদা নজরুল ইসলাম চৌধুরী মোন্তাজেম দায়িত্বে আসীন ছিলেন।

দরবারে শাহাজাদার আকষ্মিক মৃত্যুতে দরবার প্রাঙ্গনসহ দরবারের ভক্ত অনুসরারী আশেকদের মাঝে নেমে আসে গভীর শোকের ছায়া।যা আশেপাশের মানুষ এলাকাসহ কাছে -দুরের দেশ বিদেশের ভক্ত অনুসরী পরিচিতজনের মাঝে ছড়িয়ে পরে। আকস্মিক এই মৃত্যুর সংবাদে অবাক বিষ্মিত অনাকাঙ্ক্ষিত প্রতিফলনে স্মরণীয় ও গভীর শোক প্রকাশ করেন সবাই।

হঠাৎ মৃত্যুতে নিকট আত্মীয় পরিবার আত্মীয় স্বজনরা সকলেই যেন হতভম্ব।কোনমতেই মেনে নিতে পারছে না আকস্মিক এই মৃত্যু।হঠাৎ’ই এমন মৃত্যু অবাক আশ্চর্য অবিশ্বাস্য। যা কোনমতেই ভাবতে পারছে না কেউই। মেনে নিতে পারছে না প্রিয়জন ও স্বজনরা। প্রিয়জনের মৃত্যুতে মাথায় যেন আকাশ ভেঙ্গে পড়েছে আকাশ বাতাস ভারী করে তুলছে শোকের আর্তনাদে।মহান আল্লাহতালা যেন মরহুমের পরিবারকে সবর ধৈর্য ধরার তৌফিক দান করুন। মরহুমের ইহকালের ও পরকালের শেফা মাগফেরাত সকলের কামনা দোয়া আশায় আকুল আবেদনে আর্জি।জাতি,ধর্ম,বর্ণ নির্বিশেষে সকলেই মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনা করি।

সকলের আশা আকাংঙ্কা নেক-বাসনা ও পূর্ণবান,সাধকদের মোন্তাজেমের শেষ বিদায়ে আয়োজনের সমাবেশে দরবার প্রাঙ্গন গভীর শ্রদ্ধা শোকে উচ্ছাসিত সরগরমে পালিত হয়।
মরহুমের আউয়াল ও আখেরের কামিয়াবী হাসিলে ধর্ম,বর্ণ,নির্বিশেষে দলে দলে দেশ-বিদেশের সকলের প্রতি দোয়া ও দাওয়াত রইল।

শোক প্রকাশ ও কৃতজ্ঞতায়- খায়রুল্লাহ শাহ মাস্টার বাবা(কঃ) দরবার শরীফ,দরবারে আউলাদবৃন্দ ও দরবারের ভক্ত আশেকবৃন্দ।দরবার প্রাঙ্গন হতে মোহাম্মদ মাসুদ।

উল্লেখ্যঃ ইউসুফে সানি জামালে মোস্তফা,হাযত রওয়া, মুশকিল কোশা,ছেরাজুস ছালেকিন,রুহুল আশেকিন, সুলতানুল মোকাররেবিন,ফানাফিল্লাহ্,বাকাবিল্লাহ্,নুরুল আলম,গাউসুল আজম হযরত শাহ্সূফি সৈয়দ গোলামুর রহমান আল হাসানী ওয়াল হোসাইনী মাইজভাণ্ডারী (কঃ)’র করুণাধন্য বিশিষ্ট খলিফা ফানায়ে রহমান,সাহেবে কাশফ কারামাত,সংসার ত্যাগী আধ্যাত্ম মহাপুরুষ হযরত শাহ্সূফি সৈয়দ খায়রুল্লাহ্(প্রকাশঃ-মাস্টার বাবা) মাইজভাণ্ডারী (কঃ)’র পবিত্র বার্ষিক ইয়াউমে বেছাল ওরশ শরীফ বাগেঅলি আল্লাহ দরবার শরীফে অনুষ্ঠিত হয়।
প্রধান দিবস-রোজ-শুক্রবার,২৭ মহররম, ১৪৪৫হিজরি, ১৪আগষ্ট,২০২৩ইং,৩০ভাদ্র,১৪৩০বাংলা।প্রতি ২৭শে মহরম মহান পবিত্র বার্ষিক ওরস শরীফ অনুষ্ঠিত দরবার প্রাঙ্গনে।গত-২৭ মহররম,৬১তম বার্ষিক ওরস শরীফ অনুষ্ঠিত হয়।

এতে জাতি,ধর্ম,বর্ণ নির্বিশেষে সকলের উপস্থিতিতে দেশ বিদেশ থেকে দরবারের শত ভক্ত আশেকের উপস্থিতিতে মহাসমার হয়ে অনুষ্ঠিত হয়। খাইরুল্লাহ শাহ (মাস্টার বাবা) বাজান কেবলা এর মোন্তাজেমের ওফাতে ভক্ত আশেকবৃন্দের উপস্থিতি ও রুহানি প্রাণের মিলন মেলায় পরিনত হয়।

spot_imgspot_imgspot_imgspot_img
আজকের রাজশাহী
spot_imgspot_imgspot_imgspot_img

বিনোদন

- Advertisment -spot_img

বিশেষ প্রতিবেদন

error: Content is protected !!

Discover more from News Rajshahi 24

Subscribe now to keep reading and get access to the full archive.

Continue reading