2.3 C
New York
সোমবার, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২৪
spot_img

আরএমপি পবা থানার অভিযানে চুরি হওয়া ফোন উদ্ধার-সহ গ্রেপ্তার ২

সারোয়ার জাহান বিপ্লব: রাজশাহী মহানগরীর নওহাটা হতে দেড় লক্ষ টাকা মূল্যের আইফোন চুরির ঘটনায় ২ চোরকে গ্রেপ্তার করেছে আরএমপি’র পবা থানা পুলিশ। এসময় আসামিদের কাছ থেকে চুরি হওয়া আইফোনটি উদ্ধার হয়েছে।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, বাগমারা থানার তাহেরপুরের শহিদুন্নবীর ছেলে মেহেদী হাসান (২৭) ও সুজানগর থানার কামার দুলিয়া গ্রামের মন্টু মন্ডলের ছেলে রফিকুল ইসলাম (৩৮)। রফিকুল রাজশাহী মহানগরীর চন্দ্রিমা থানার রেল কলোনীর বাসিন্দা।

ঘটনা সূত্রে জানা যায়, ইমন আলী (৩০) রাজশাহী মহানগরীর পবা থানার নওহাটা মাদ্রাসাপাড়ায় বসবাস করেন। গত (১২ই মার্চ) সকালে তিনি ঘরের দরজার খোলা রেখে বাহিরে যান। আবার সকাল ১১ টার দিকে বাহির থেকে ঘরে প্রবেশ করে দেখেন তার আইফোনটি নাই। তিনি আশপাশ বিভিন্ন জায়গায় অনেক খোঁজাখুঁজি করেন। কিন্তু খোঁজাখুঁজি করে কোথাও না পেয়ে বুঝতে পারেন যে তার মোবাইল ফোনটি চুরি হয়েছে। এরপর তিনি পবা থানায় একটি চুরির মামলা করেন।

চুরির মামলার পরিপ্রেক্ষিতে উপ-পুলিশ কমিশনার (শাহমখদুম) নূর আলম সিদ্দিকী চোরাই মোবাইল ফোনটি উদ্ধার ও আসামি গ্রেপ্তারের নির্দেশে অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার এ.এইচ.এম আসাদ হোসেনের তত্ত্বাবধানে অফিসার ইনচার্জ রফিকুল হকের নেতৃত্বে পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) শেখ মোবারক পারভেজ, এসআই শামীম হোসেন ও তার টিম চোরাই মোবাইল ফোন উদ্ধার-সহ আসামি গ্রেপ্তারে অভিযান শুরু করেন। এক পর্যায়ে তারা আরএমপি’র সাইবার ক্রাইম ইউনিটের সহায়তায় তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে আসামি সনাক্ত করে।

পরবর্তীতে পবা থানা পুলিশের ঐ টিম আজ (১৪ মার্চ) রাজশাহী জেলার বাগমারা থানার তাহেরপুর তদন্ত কেন্দ্রের অফিসার ফোর্সের সহায়তায় আসামি মেহেদীকে তার বাড়ি হতে গ্রেপ্তার করেন। এসময় আসামির কাছ থেকে চুরি হওয়া আইফোনটি উদ্ধার হয়।

গ্রেপ্তারকৃত আসামির দেওয়া তথ্যমতে ঐ রাতেই ৪:৩০টায় অপর আসামি রফিকুল ইসলামকে তার চন্দ্রিমা থানার রেল কলোনীর বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃত আসামিদ্বয়কে বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

spot_imgspot_img
রাজশাহী বিভাগ

সর্বশেষ খবর

- Advertisment -spot_img

সর্বাধিক জনপ্রিয়

error: Content is protected !!

Discover more from News Rajshahi 24

Subscribe now to keep reading and get access to the full archive.

Continue reading