26.3 C
New York
রবিবার, মে ২৬, ২০২৪
spot_imgspot_imgspot_imgspot_img

হরতালে ছদ্মবেশে অবস্থান করবে র‌্যাব

বিএনপি ও সমমনা দলের ডাকা রবি ও সোমবারের হরতালে টহল অভিযানের পাশাপাশি ছদ্মবেশেও রাজপথে অবস্থান করার কথা জানিয়েছেন র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন

শনিবার (১৮ নভেম্বর) দুপুরে রাজধানীর কারওয়ানবাজারে র‍্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে একথা জানান তিনি।

মঈন বলেন, জনগণের জানমাল নিরাপত্তায় যত রকম ব্যবস্থা আছে আমরা তা নিশ্চিত করব। বাস, গাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় আমরা যাত্রীবেশেও নিরাপত্তা নিশ্চিত কর‍তে অবস্থান নেব। এর আগেও আমরা এভাবে ছদ্মবেশে অবস্থান নিয়েছি।

তিনি বলেন, ‘ছদ্মবেশে বিভিন্ন স্থানে অবস্থান, সাদাপোশাকে ও যাত্রীবেশে গণপরিবহনে অবস্থানে র‍্যাবের এই কার্যক্রম চলমান থাকবে। এছাড়া, আমরা হামলার জায়গাগুলো শনাক্ত করছি, বাস মালিকদের সঙ্গে বসছি, যারা যে সহায়তা চায় দিচ্ছি। এর ফলে চলন্ত গাড়িতে কিন্তু অগ্নিসংযোগ কমেছে।’

চোরাগোপ্তা হামলা প্রসঙ্গে মঈন বলেন, নাশকতাকারীরা স্থান-কাল-পাত্র ভেদে কিছু চোরাগোপ্তা হামলা করছে। এসব হামলা প্রতিরোধে র‌্যাব সদস্যরা বিভিন্ন জায়গায় ছদ্মবেশে অবস্থান করছে, গণপরিবহনে যাত্রী বেশে অবস্থান করছে। এ ক্ষেত্রে আমাদের সফলতা রয়েছে, আমরা বেশ কয়েকজনকে নাশকতার সময় হাতেনাতে আটক করেছি।

র‌্যাবের চার শতাধিক টহল অভিযান চলমান আছে জানিয়ে খন্দকার মঈন বলেন, অবরোধ শুরুর পর থেকে পরবর্তী সময়ে যাত্রীবাহী, পণ্যবাহী যানবাহন ও তেলবাহী লরি মিলিয়ে ১৭ হাজারের বেশি গাড়িকে নিরাপত্তা দিয়েছে র‍্যাব। ২০০-এর বেশি কনভয়কে নিরাপদে গন্তব্যে পৌঁছে দিয়েছে। আমরা এটা করছি যাতে অর্থনৈতিক চেইনটা ঠিক থাকে। আমাদের এ স্কট চলমান রয়েছে। র‍্যাবের চার শতাধিক টহল টিম স্কটিংয়ে ব্যবহৃত হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন,  হরতাল-অবরোধে দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে সারাদেশে র‍্যাবের সাড়ে ৪ শতাধিক টহল দল মোতায়েন রয়েছে। এর মধ্যে শুধু ঢাকায় দেড় শতাধিক টহল দল মোতায়েন করা হয়েছে। গুরুত্বপূর্ণ স্থান ও সড়কে র‍্যাব ফোর্সেসের রোবাস্ট টহল পরিচালিত হচ্ছে।

চলন্ত গাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনা অনেক কম মন্তব্য করে মঈন বলেন, ‘আমাদের টহল অভিযান অব্যাহত থাকায় চলন্ত গাড়িতে অপরাধীরা অগ্নিসংযোগের মতো ঘটনা ঘটাতে পারছে না। যারা হরতালে গাড়ি রাখেন তাদের কাছে অনুরোধ, আপনারা নির্জন জায়গায় যেখানে মানুষজন বা নিরাপত্তায় নিয়োজিত কোনো আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য নেই সেখানে গাড়ি রাখবেন না। তাহলে গাড়িতে অগ্নিসংযোগ কম হবে।’

মঈন বলেন, নির্বাচনের আগে দেশের পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে আমরা বেশ কিছু অভিযান পরিচালনা করছি। এর মধ্যে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার করা ও যারা চিহ্নিত সন্ত্রাসী তাদের বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান চলমান আছে। এরইমধ্যে আমরা উল্লেখযোগ্য হারে না হলেও বেশ কিছু অস্ত্র উদ্ধার করতে পেরেছি।

তিনি আরও বলেন, সংবিধানের ১২৬ ধারা অনুযায়ী, সব নির্বাহী বিভাগ নির্বাচনে সহায়তা করছে। নির্বাচন কমিশন থেকে জারি করা বিভিন্ন নির্দেশনা আমরা বাস্তবায়ন করে যাচ্ছি। এ সময়টাতে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারে অভিযান চলমান রয়েছে, যারা চিহ্নিত অপরাধী তাদের আইনের আওতায় আনতে কাজ করছি। আমাদের এ কার্যক্রম চলমান থাকবে।

spot_imgspot_imgspot_imgspot_img
আজকের রাজশাহী
spot_imgspot_imgspot_imgspot_img

বিনোদন

- Advertisment -spot_img

বিশেষ প্রতিবেদন

error: Content is protected !!

Discover more from News Rajshahi 24

Subscribe now to keep reading and get access to the full archive.

Continue reading